খেলা

দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ম্যাচসেরা সৌম্য

নগর খবর ডেস্ক : ২০১৮ থেকে ২০২৩। মাঝের এই ৫ বছরে অনেক কিছুই দেখে ফেলেছে বিশ্ব। বদলেছে অনেক কিছুই। ক্রিকেটেও এসেছে পালাবদল। বাংলাদেশ ক্রিকেটও সাক্ষী হয়েছে নানা উত্থান-পতনের। তবে এই লম্বা সময়ে নিজের ক্যারিয়ারকে কেবলই নিচের দিকেই যেতে দেখেছেন সৌম্য সরকার। সেই যে ২০১৮ তে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেঞ্চুরি পেলেন, এরপর থেকে বিভিন্নবার সুযোগ পেয়েও নিজেকে মেলে ধরা হয়নি তার।

অনেকবারই অনেক সুযোগ পেয়েছেন সৌম্য। সেসব কাজে লাগাতে পারেননি। মানুষের নেতিবাচক রোষের মুখে পড়েছেন। বারবার ছিটকেও গিয়েছেন। অবশেষে বুধবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডেতে আবার সেঞ্চুরি পেয়েছেন ৩০ বছর বয়েসী এই ব্যাটার। নেলসনে কিউই বোলারদের পাত্তা না দিয়ে করেছেন ১৬৯ রান। পেয়েছেন ম্যাচসেরার পুরস্কারও।

সৌম্য সরকার এদিন আউট হয়েছেন ১৬৯ রান করে। যা ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান। তামিম ইকবালের ১৫৪ এবং ১৫৮ রানের ইনিংস ছাপিয়ে কিউইদের বিপক্ষে সৌম্যের এই ইনিংস উঠে এসেছে সর্বোচ্চ রান তালিকার দ্বিতীয় স্থানে। সামনে আছে লিটন দাসের ১৭৬ রান।

 

বুধবার ম্যাচের শুরু থেকেই ছন্দে ছিলেন সৌম্য। দুইবার লাইফ পেলেও সুযোগটা ঠিকঠাকই কাজে লাগিয়েছেন ৩০ বছর বয়েসী এই ব্যাটার। সতীর্থদের আসা যাওয়ার মিছিলে একপ্রান্ত আগলে রেখে ব্যাট চালিয়েছেন তিনি। আগের ম্যাচে ব্যর্থতার পরেও সতীর্থ আর কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন তিনি।

অন্য ব্যাটারদের আসা যাওয়ার মিছিলে একপ্রান্ত আগলে রেখে দুর্দান্ত ব্যাটিংই করেছেন সৌম্য। বিগত দিনগুলোতে যেসব কারণে সমালোচিত হয়েছেন, সেখানেই আজ দেখা গিয়েছে উন্নতির গ্রাফ। দুইবার লাইফ পেয়েছেন কিউই বোলারদের কল্যাণে। আর সেই সুযোগটা দারুণভাবে কাজেও লাগিয়েছেন।

 

এরই মধ্যে হয়েছে আরেক বিরল রেকর্ড। যাতে পেছনে পড়ল কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের এক রেকর্ডও। নিউজিল্যান্ডের মাঠে এশিয়ান ব্যাটারদের মধ্যে এখন সর্বোচ্চ রানের ইনিংস সৌম্য সরকারের। ২০০৯ সালে শচীনের করা ১৬৩ রান এখন নেমে গেছে দুইয়ে।

Back to top button