বিনোদন

১৩ বছর বিরতি নিয়ে বলিউডে ফিরছেন এই তারকাসন্তান

নগর খবর ডেস্ক : বাবা ছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা। অভিনয়ের পাশাপাশি ছবি পরিচালনা এবং প্রযোজনার সঙ্গেও জড়িয়ে ছিলেন তিনি। কিন্তু এত বড় তারকার পুত্র হয়েও ক্যারিয়ারের ঝুলিতে একের পর এক ফ্লপ ছবি পুরে গিয়েছেন ফিরোজ খানের পুত্র ফারদিন খান।

১৯৭৪ সালের ৮ মার্চ মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়ে জন্ম ফারদিনের। আমেরিকার কলেজ থেকে বিজনেস ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি। কিন্তু অভিনয় নিয়ে ক্যারিয়ার গড়তে আবার মুম্বাইয়ে ফিরে আসেন। মুম্বাই ফিরে সেখানকার এক খ্যাতনামা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে অভিনয় শেখেন ফারদিন। পুত্র অভিনয়ে নামতে চান দেখে তাকে বলিউডে আত্মপ্রকাশের সুযোগ করে দেন ফিরোজ।

১৯৯৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘প্রেম আগন’ নামের একটি হিন্দি ছবি পরিচালনা করেন ফিরোজ। এই ছবির মাধ্যমেই হিন্দি চলচ্চিত্রজগতে আত্মপ্রকাশ করেন ফারদিন। তার বিপরীতে এই ছবিতে অভিনয় করেন মেঘনা কোঠারি। কিন্তু ফারদিনের ক্যারিয়ারের প্রথম ছবি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে।

প্রথম ছবি মুক্তির দু’বছর পর ২০০০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘জঙ্গল’ ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যায় ফারদিনকে। সুনীল শেটি এবং ঊর্মিলা মাতন্ডকরের মতো বলিউড তারকারাও এই ছবিতে অভিনয় করেন। কিন্তু দর্শকমনে ফারদিনের অভিনয় সে অর্থে ছাপ ফেলতে পারেনি।

২০০১ সালে ‘প্যার তুনে কয়া কিয়া’, ‘লভ কে লিয়ে কুছ ভি করেগা’ এবং ‘হম হো গয়ে আপকে’ নামের তিনটি হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেন ফারদিন। ‘প্যার তুনে কেয়া কিয়া’ ছবিতে অভিনয় করে বলিপাড়ায় পরিচিতি পান অভিনেতা। তারপর ‘কুছ তুম কহো কুছ হাম কহে’, ‘ওম জয় জগদীশ’, ‘ফিদা’, ‘ভূত’, ‘খুশি’, ‘নো এন্ট্রি’, ‘শাদি নম্বর ১’, ‘জাস্ট ম্যারেড’-এর মতো একাধিক হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেন ফারদিন। কিন্তু কোনো ছবিই বক্স অফিসে সাড়া ফেলতে পারেনি।

২০০৭ সালে সাজিদ খানের পরিচালনায় মুক্তি পায় ‘হে বেবি’ ছবিটি। এই ছবিতে মুখ্যচরিত্রে অভিনয় করেন অক্ষয় কুমার, বিদ্যা বালান, রীতেশ দেশমুখ এবং ফারদিন খান। ছবিটি বক্স অফিসে ভালো ব্যবসা করে। কিন্তু ছবির সব প্রশংসা নিয়ে যান অক্ষয় এবং বিদ্যা।

‘হে বেবি’র পর ‘ডার্লিং’, ‘জয় বীরু’, ‘লাইফ পার্টনার’, ‘অ্যাসিড ফ্যাক্টরি’, ‘অল দ্য বেস্ট : ফান বিগিনস’, ‘দুলহা মিল গ্যায়া’র মতো হিন্দি ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যায় ফারদিনকে। কিন্তু সেই ছবিগুলোও বক্স অফিসে ব্যবসা করতে পারেনি। ২০১০ সালে বড় পর্দায় শেষ অভিনয় করেন ফারদিন। ‘দুলহা মিল গ্যায়া’ ছবিতে সুস্মিতা সেন এবং ইশিতা শর্মার সঙ্গে অভিনয় করতে দেখা যায় ফারদিনকে। এই ছবিতে অতিথি শিল্পী হিসাবে অভিনয় করেন শাহরুখ খান। ‘দুলহা মিল গ্যায়া’ ছবির পর আর কোনো ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যায়নি ফারদিনকে।

বলিপাড়ার সূত্রের খবর, ১৩ বছরের বিরতির পর আবার বড় পর্দায় ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফারদিন। শুধুমাত্র বড় পর্দায় নয়, ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও নাকি আত্মপ্রকাশ করতে চলেছেন তিনি। ‘বিস্ফোট’ নামের একটি হিন্দি ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যাবে ফারদিনকে। এই ছবির পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন সঞ্জয় গুপ্ত। ফারদিনের সঙ্গে রীতেশ দেশমুখকেও এই ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যেতে পারে।

Back to top button