ইঞ্জেকশন কাজ না করলেও অ্যালকোহল কাজ করবে » নগর খবর
  1. jahid.raj24@gmail.com : Jahid :
  2. mamun@gmail.com : mamun :
  3. ms2120524@gmail.com : Mridul :
  4. nogorkhobor@gmail.com : nogorkhobor@admin :
  5. parish@gmail.com : parish :
  6. parvaje01842@gmail.com : নগর ডেস্কঃ :
  7. rumonahamed442@gmail.com : Rumon Ahamed : Rumon Ahamed
  8. sagor.hosaain2@gmail.com : sagor.hasaain :
ইঞ্জেকশন কাজ না করলেও অ্যালকোহল কাজ করবে » নগর খবর
বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৪:৩০ পূর্বাহ্ন
নগর খবর শিরোনামঃ

ইঞ্জেকশন কাজ না করলেও অ্যালকোহল কাজ করবে

  • নগর ডেস্ক
    নগর খবর
    আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১

রাত ১০টা থেকে শুরু হচ্ছে লকডাউন। দিল্লিতে এই খবর চাউর হতেই বিভিন্ন জায়গায় মদের দোকানের বাইরে লম্বা লাইন পড়ে যায়। ফিরে আসে ২০২০ সালের স্মৃতি। সে বার অবশ্য লকডাউন ওঠার পরে লাইন লাগিয়েছিলেন গোটা দেশের সুরারসিকরা। এ বার আগে ভাগেই ‘স্টক’ করার দীর্ঘ লাইন দেখল দিল্লি। আর সেই লাইনে দাঁড়িয়ে এক মধ্যবয়স্কা মহিলার করা দাবি ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে দিকে দিকে। সংবাদমাধ্যমের সামনে তাঁর সাফ কথা, ‘‘মদ খেলে করোনা হবে না। তাই লকডাউনে বাকি সব বন্ধ থাকলেও মদের দোকান খোলা রাখা উচিত সরকারের।’’

 

সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের তরফে সেই ভিডিয়ো প্রকাশ করা হয়েছে। সেই ভিডিয়োতে মহিলাকে দেখা যাচ্ছে,মদের দোকানের লাইনে তিনি মাস্ক পরে দাঁড়ালেও নাকে কোনও আবরণ নেই। তিনি যে মদ কিনতেই এসেছেন সে কথা জানিয়ে ক্যামেরার সামনে তিনি বলছেন, ‘‘মদের মধ্যে অ্যালকোহল থাকে। ইঞ্জেকশন কাজ না করলেও অ্যালকোহল কাজ করবে। যাঁরা মদ্যপায়ী তাদের ওষুধে কাজ না হলেও মদে কাজ হবে।’’

মদের ‘মহিমা’ তিনি নিজের জীবনের মধ্য দিয়ে বুঝেছেন দাবি করে এও বলেছেন, ‘‘আমি ৩৫ বছর ধরে মদ খাচ্ছি। রোজ ১ পেগ করে খাই। তাই আজ অব্দি অন্য কোনও ওষুধ খেতে হয়নি।’’ তিনি মনে করেন, এমন ‘গুণ’-এর জন্যই লকডাউনের সময়ও মদের দোকান খোলা রাখা উচিত। তা হলে হাসপাতালে রোগীর সংখ্যাও কমে যাবে এবং মদ্যপায়ীরা বেঁচে থাকবেন বলে দাবি করেন ওই মহিলা।


এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, nogorkhobor@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন NogorKhobor আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

এই বিভাগের আরও খবর

আমাদের লাইক পেজ

Facebook Pagelike Widget