অবশেষে জামা-জুতার ৮৬৪ কোটি টাকা পাচ্ছেন খুদে শিক্ষার্থীরা » নগর খবর
  1. jahid.raj24@gmail.com : Jahid :
  2. mamun@gmail.com : mamun :
  3. ms2120524@gmail.com : Mridul :
  4. nogorkhobor@gmail.com : nogorkhobor@admin :
  5. parish@gmail.com : parish :
  6. parvaje01842@gmail.com : নগর ডেস্কঃ :
  7. rumonahamed442@gmail.com : Rumon Ahamed : Rumon Ahamed
  8. sagor.hosaain2@gmail.com : sagor.hasaain :
অবশেষে জামা-জুতার ৮৬৪ কোটি টাকা পাচ্ছেন খুদে শিক্ষার্থীরা » নগর খবর
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:০০ অপরাহ্ন
নগর খবর শিরোনামঃ

অবশেষে জামা-জুতার ৮৬৪ কোটি টাকা পাচ্ছেন খুদে শিক্ষার্থীরা

  • নগর ডেস্ক
    নগর খবর
    আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ২ জুন, ২০২২

প্রায় আড়াই বছর আটকে থাকার পর জামা-জুতা কেনার ৮৬৪ কোটি টাকা পাচ্ছেন খুদে শিক্ষার্থীরা। মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে ওই টাকা দেয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিলো। সে অনুযায়ী, ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের জানুয়ারিতে নতুন ক্লাসে ওঠার সময়েই প্রাথমিক পর্যায়ের প্রতি শিক্ষার্থীর এক হাজার টাকা করে পাওয়ার কথা। গত বছরের জুন মাসে এ টাকা ছাড় করা হলেও নানা জটিলতায় আবার তা আটকে গিয়েছিলো। অবশেষে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় টাকা ছাড় করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে নির্দেশ দিয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন উপসচিব বিষয়টি নিশ্চিত করে গতকাল বুধবার দৈনিক আমাদের বার্তাকে বলেন, শিশু শিক্ষার্থীদের কিটস্ অ্যালাউন্সের ৮৬৪ কোটি টাকা ছাড়ের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে গত ১৭ মে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে অবিতরণকৃত এ ছাড়ের বিষয়ে বিধিবিধান অনুসরণ করে বিতরণের ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে সায় মিলেছে। সে অনুসারে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে টাকা ছাড়ের ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, ২০২০-২১ অর্থবছরে প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রদান শীর্ষক প্রকল্পের খাতে এ টাকা বরাদ্দ দিয়েছিলো সরকার।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ টাকা সুবিধাভোগী শিক্ষার্থীদের অভিভাবকের মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টে পাঠানোর প্রস্তুতি নিতে অধিদপ্তর থেকে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও প্রধান শিক্ষকদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গত বছর যে মোবাইল অ্যাকাউন্ট নম্বর উপবৃত্তির টাকা পেতে এন্ট্রি করেছিলেন সেই নম্বরটি সচল রাখতে অভিভাবকদের বলা হয়েছে। একইসঙ্গে সেই মোবাইল সেটটি নিজে সংরক্ষণ করে ব্যবহার এবং ওই মোবাইলে পাঠানো ওটিপি, পিন নম্বর বা এসএমএস অন্যদের সঙ্গে শেয়ার না করতে অভিভাবকদের অনুরোধ জানানো হয়েছে।  বিষয়টি জানিয়ে গত ৩০ মে মাঠ পর্যায়ের শিক্ষা কর্মকর্তাদের চিঠি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে অধিদপ্তর বলছে, ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্প-৩য় পর্যায়ের উপবৃত্তি ও কিটস্ অ্যালাউন্স বাবদ অবিতরণকৃত ৮৬৪ কোটি ২০ লাখ টাকা বিতরণের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা রয়েছে। এ লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট প্রধান শিক্ষক, সহকারী উপজেলা বা থানা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা বা থানা শিক্ষা অফিসার, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণ এবং নির্ধারিত দায়িত্ব পালনের জন্য অনুরোধ করা হলো।

অধিদপ্তর আরও বলছে, সব উপজেলা বা থানা শিক্ষা অফিসার, সহকারী উপজেলা বা থানা শিক্ষা অফিসার নিজ নিজ নিয়ন্ত্রণাধীন বিদ্যালয়গুলোতে যেন উপবৃত্তি বিতরণ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। সব সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বিষয়টি সার্বক্ষণিকভাবে মনিটরিং করবেন। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এবং বিভাগীয় উপপরিচালকরা মাঠ পর্যায়ে উপবৃত্তির কার্যক্রম সার্বিক তত্ত্বাবধান করবেন।

জানা গেছে, প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি বিতরণ প্রকল্পটি ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের জুন মাসে বন্ধ হয়ে যায়। তখন উপবৃত্তি বিতরণের দায়িত্বে ছিলো মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস নগদ। প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে প্রকল্পের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় ২০২০-২১ অর্থবছরের উপবৃত্তি ও কিট অ্যালাউন্সের টাকা বিতরণ করা হয়নি। এর পরিমাণ ৮৬৪ কোটি ২০ লাখ টাকা। ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের ৩০ জুন পর্যন্ত চুক্তির মেয়াদ ছিল। পুরো টাকা অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে ছাড় করা হলেও তা বাংলাদেশ ব্যাংকে পড়ে ছিলো। ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ডিসেম্বরে প্রাথমিক পর্যায়ের দেড় কোটি শিক্ষার্থীর উপবৃত্তি ও শিক্ষা উপকরণ কেনার ভাতা বিতরণের দায়িত্ব পেয়েছিলো নগদ।


এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, nogorkhobor@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন NogorKhobor আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

এই বিভাগের আরও খবর

আমাদের লাইক পেজ

Facebook Pagelike Widget