মাদক আইনের মামলা ; ২ রাবি ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার » নগর খবর
  1. jahid.raj24@gmail.com : Jahid :
  2. mamun@gmail.com : mamun :
  3. Manikhosen415@gmail.com : Manik :
  4. ms2120524@gmail.com : Mridul :
  5. naim2020hasan@gmail.com : naime :
  6. nogorkhobor@gmail.com : nogorkhobor@admin :
  7. parish@gmail.com : parish :
  8. parvaje01842@gmail.com : নগর ডেস্কঃ :
  9. rumonahamed442@gmail.com : Rumon Ahamed : Rumon Ahamed
  10. sagor.hosaain2@gmail.com : sagor.hasaain :
মাদক আইনের মামলা ; ২ রাবি ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার » নগর খবর
বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:০৪ পূর্বাহ্ন

মাদক আইনের মামলা ; ২ রাবি ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

  • নগর ডেস্ক
    নগর খবর
    আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২২

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৪ শিক্ষার্থীর নামে মামলা হয়েছে। এই মামলায় দুই ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ এবং অন্য দুইজন পলাতক রয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নগরীর মতিহার থানায় এই মামলা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার আলী তুহিন বলেন, মাদক মামলায় চার শিক্ষার্থীর নামে মামলা হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং দুইজন পলাতক রয়েছে।

গ্রেফতার দুই জন হলেন- টুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী ও শহীদ শামসুজ্জোহা হল শাখা ছাত্রলীগের উপ-সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক আরিফ বিন সিদ্দিক ও ফোকলোর বিভাগে শিক্ষার্থী ও জিয়া হল শাথা ছাত্রলীগের উপ-পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম। এছাড়া পালাতক দুই জন টুরিজম এণ্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতা সোহানুর রহমান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী ও শেরেবাংলা এ.কে ফজলুল হক হলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ।

মামলার এজহারে উল্লেখ রয়েছে, তারা পরস্পর অবৈধভাবে মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজেদের হেফাজতে রেখেছে। তাই ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ৩৬ (১) সারণি ১৯ (ক)/৪১ ধারার অপরাধের ভিত্তি এই মামলা রজু করা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নিরাপত্তা নিশ্চিততের লক্ষ্যে দুপুরে ক্যাম্পাসে টহল দিচ্ছিল প্রক্টরিয়াল টিম। এসময় ক্যাম্পাসের শেখ রাসেল মাঠে কয়েকজন মাদক সেবন করছিল। তাদেরকে জিজ্ঞেসবাদ করলে ১২টি গাঁজার প্যাকেট পাওয়া যায়। তখন গাঁজাসহ তাদের আটক করে প্রক্টর দপ্তরে আনা হয়। তবে টয়লেটে যাওয়ার নাম করে সোহানুর রহমান ও রাজু দপ্তর থেকে পালিয়ে গেছে।

মাঠে বসে মাদক সেবনের বিষয়টি স্বীকার করলেও আটক ছাত্রলীগ নেতারা দাবি করেন, মাঠে বসার পর অপরিচিতি এক ব্যক্তি এসে তাদের পাশে গাঁজার প্যাকেট ফেলে যায়। তারা প্যাকেটটি হাতে নেয়ার পর পরই প্রক্টরিয়াল টিম গিয়ে তাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যায়।

ক্যাম্পাসে সূত্রে জানা গেছে, ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা নিয়মিত মাদক সেবনের অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে। দিনে-রাতে ক্যাম্পাসের অপেক্ষাকৃত নির্জন জায়গায় এসব মাদকসেবন করেন তারা। এমনকি এই মাদক চক্রে দিন দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সংখ্যা বাড়ছে। গাঁজার পাশাপাশি ইয়াবা, ফেনসিডিল, হেরোইনসহ অন্যান্য মাদক সেবন করেন তারা।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, বিষয়টি জানতে পেরেছি। আমরা এ বিষয়ে খোঁজ নিচ্ছি।সাধারণ সম্পাদক ক্যাম্পাসে না থাকায় এ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না। তদন্ত সাপেক্ষে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এই ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক বলেন, ক্যাম্পাসে মাদক সেবনের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে প্রশাসন এ বিষয়ে প্রতিনিয়ত কঠোর নজরদারি করছে। আটকৃতদেরকে আমরা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে। আইন অনুসারে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, nogorkhobor@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন NogorKhobor আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

এই বিভাগের আরও খবর