সারাদেশ

এ কে আজাদের সমর্থকদের ওপর হামলার অভিযোগ নৌকার সমর্থকদের বিরুদ্ধে

নগর খবর ডেস্ক : ফরিদপুর-৩ (সদর) আসনের গেরদা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী এ কে আজাদের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুর ও তার দুইজন কর্মীকে মারধর করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী শামীম হকের অনুসারীরা এ ভাঙচুর ও মারধর করেছেন বলে অভিযোগ এ কে আজাদের সমর্থকদের।

রোববার (২৪ ডিসেম্বর) বিকেল চারটার দিকে সদরের গেরদা ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়ার্ডের গেরদা আবুল ফয়েজ মজিবর রহমান উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- গেরদা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক স্কুল শিক্ষক জুনায়েদ হোসেন ও শেখ খবির। এর মধ্যে আহত শেখ খবিরকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, হামলাকারীরা মোটরসাইকেলে এসে এ কে আজাদের নির্বাচনী ক্যাম্প থেকে ওই দুই ব্যক্তিকে ডেকে নিয়ে লাঠিসোঁটা ও হকিস্টিক দিয়ে পেটান। পরে হামলাকারীরা নির্বাচনী ওই ক্যাম্পটি ভাঙচুর করে। ঘটনার পর ঈগল প্রতীকের বিক্ষুব্ধ সমর্থকরা বিক্ষোভ মিছিল করেন।

গেরদা ইউনিয়নে এ কে আজাদের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব মো. রিয়াদ মিয়া অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী শামীম হকের অনুসারী গেরদা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ মোহাম্মদ এমার হকের নেতৃত্বে এই হামলা চালানো হয়। তার সঙ্গে অংশ নেয় তোফাজ্জল হোসেন ওরফে সম্রাট ও হাসিবুর রহমান ওরফে জেমি। তিনি বলেন, ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

অভিযোগ সম্পর্কে গেরদা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী শামীম হকের সমর্থক শাহ মোহাম্মদ এমার হক বলেন, ভাঙচুর ও মারধরের ঘটনার সঙ্গে তিনি জড়িত নন। এ ঘটনা কারা ঘটিয়েছেন তাও তিনি জানেন না।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদপুর কোতয়ালী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, গেরদায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা ভাঙচুর ও মারধরের ঘটনা ঘটেছে। এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

Back to top button