নওগাঁসারাদেশ

ট্রাকের প্রচারণা করলে গলা নামিয়ে দেওয়ার হুমকি ছাত্রলীগ নেতার

নগর খবর ডেস্ক : নওগাঁ-৫ (সদর) আসনে ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারণা করায় এক আওয়ামী লীগ নেতাকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়াসহ প্রায় ১ ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাব্বির আহমেদ রেজভীর বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় শহরের স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত কো-অপারেটিভ ফোরামের অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যে তাকে হুমকি দেওয়া হয়।

পরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর অনুসারীরা সেখানে গিয়ে ওই আওয়ামী লীগ নেতাকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দেন। ভুক্তভোগী ওই আওয়ামী লীগ নেতার নাম আসলাম হোসেন। তিনি সদর উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

ভুক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, নতুন বছরের ক্যালেন্ডার বিতরণ উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শহরের ডানা পার্কের কমিউনিটি সেন্টারে প্রস্তুতি সভার আয়োজন করে নওগাঁ কো-অপারেটিভ ফোরাম। যেখানে অংশ নেয় সদর উপজেলার ২২টি সমবায় সমিতির ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা। যার মধ্যে একজন তৃণমূল সেভিংস অ্যান্ড ক্রেডিট কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চন্ডিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসলাম হোসেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে অনুষ্ঠান শুরু হলে পর্যায়ক্রমে সেখানে বক্তব্য দেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দরা। এ সময় আকস্মিক সেখানে প্রবেশ করেন নৌকার প্রার্থী ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জনের অনুসারী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাব্বির আহমেদ রেজভী। এরপর আসলাম হোসেনকে প্রকাশ্যে মেরে ফেলার হুমকি দেন সাব্বির।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সমতা বহুমুখী সমবায় সমিতির ব‌্যবস্থাপনা পরিচালক শাহিদুর রহমান শাহিন বলেন, ছাত্রলীগ সভাপতি সাব্বির তার নেতাকর্মীদের নিয়ে আকস্মিক আমাদের বার্ষিক সভায় এসে হট্টগোল করেছে। আমাদের সদস্য আসলাম ভাইকে হুমকি ধামকি দিয়ে গেছে তারা। পরে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে দ্রুত সভা শেষ করতে হয়েছে।

ভুক্তভোগী আসলাম হোসেন অভিযোগ করে বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় কো- অপারেটিভ ফোরামের সকল সদস্যদের সামনে ছাত্রলীগ সভাপতি এসে আমার ঘাড় থেকে গলা নামিয়ে ফেলার হুমকি দিয়েছে। নির্বাচনের আগে ঘরের বাইরে বের হলে আমাকে মেরে ফেলা হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়। সাব্বিরের নেতৃত্বে প্রায় ৩০ জন নৌকার সমর্থক আমাকে ১ ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রেখেছিল। পরে পৌরসভার প্যানেল মেয়র সম্রাটের সহযোগিতায় বাড়িতে সুস্থভাবে ফিরতে পেরেছি। বর্তমানে নিজের জীবন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে নওগাঁ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাব্বির আহমেদ রেজভী ঢাকা পোস্টকে বলেন, ট্রাক প্রতীকের কিছু সমর্থকদের ওই অনুষ্ঠানে যাওয়ার খবর পেয়ে আমিও গিয়েছিলাম। সেখানে আসলাম হোসেন ট্রাকের হয়ে পুরো ইউনিয়ন দখলে নেওয়ার বক্তব্য রেখেছেন। তাই আমি উপস্থিত সমবায় সমিতির নেতৃবৃন্দদের উদ্দেশ্যে নিরপেক্ষভাবে কাজ করার অনুরোধ জানিয়েছি মাত্র। এটা শুনে আসলাম হোসেন ভয় পেয়ে থাকলে আমার কিছুই করার নেই। পরে তিনি দুজন কাউন্সিলর গেলে অনুষ্ঠান থেকে বেরিয়ে গেছেন।

নওগাঁ সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল হক বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর কোনো সমর্থককে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হুমকি দিয়েছেন এমন তথ্য আমাদের জানা নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Back to top button