সারাদেশ

প্রধানমন্ত্রীর জনসভা ঘিরে সিলেটে ৪ জোড়া স্পেশাল ট্রেন

নগর খবর ডেস্ক : সিলেট থেকে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করবেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (২০ ডিসেম্বর) সিলেটের হযরত শাহজালাল ও শাহ পরান (রহ.) এর মাজার জিয়ারত এবং জনসভার মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু হবে।

এদিকে এ জনসভাকে কেন্দ্র করে নেতা-কর্মীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে আজ বুধবার সিলেটের বিভিন্ন রুটে চার জোড়া স্পেশাল ট্রেন পরিচালনা করবে বাংলাদেশে রেলওয়ে।

 

বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সহকারী প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (আর) মো. খলিলুর রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, শায়েস্তাগঞ্জ-সিলেট-শায়েস্তাগঞ্জ রুটে দুই জোড়া, মনতলা-সিলেট-মনতলা এবং সিলেট-বরমচাল-কুলাউড়া-সিলেট রুটে এক জোড়া করে মোট চার জোড়া স্পেশাল ট্রেন যাওয়া-আসা করবে। জনসভাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের আবেদনের প্রেক্ষিতে এ বিশেষ ট্রেন সার্ভিসের অনুমোদন দিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

রেলওয়ের তথ্যমতে, স্পেশাল-১ ট্রেনটি শায়েস্তাগঞ্জ-সিলেট-শায়েস্তাগঞ্জ রুটে যাওয়া-আসা করবে। ১১৯ কিলোমিটার দূরত্বের এ রুটে ১০টি কোচ দিয়ে বিশেষ ট্রেন উভয় পথে যাত্রী পরিবহন করবে। এ রুটে সুলভ ২য় শ্রেণিতে জনপ্রতি ভাড়া ৭০ টাকা ও শোভন ১১৫ টাকা ধার্য করা হয়েছে। এ ছাড়া পার্সেল ভাড়া রাখা হয়েছে প্রতিকেজি ১ টাকা ৩৭ পয়সা। প্রতি ট্রিপে (আপ ও ডাউন) রেকপ্রতি ৫৬ হাজার ১২০ টাকা, ১০% ননস্টপ চার্জ ৫ হাজার ৬১২ টাকা ধরে স্পেশাল-১ ট্রেনের দুই ট্রিপে মোট ভাড়া ধরা হয়েছে ১ লাখ ২৩ হাজার ৪৬৪ টাকা।

 

স্পেশাল-২ ট্রেনটি একই রুটে (শায়েস্তাগঞ্জ-সিলেট-শায়েস্তাগঞ্জ) সমাবেশের যাত্রী পরিবহন করবে। ১০ কোচের ট্রেনটিতে সুলভ (২য় শ্রেণি), শোভন, শোভন চেয়ার ছাড়াও প্রথম শ্রেণির কোচ সংযোজন করা হয়েছে। রেকপ্রতি ৪৭ হাজার ১৪১ টাকা ও ১০% ননস্টপ চার্জ ২ হাজার ৮৭৪ টাকা ধরে দুই ট্রিপে মোট ভাড়া ধরা হয়েছে ১ লাখ ৩০ টাকা।

 

স্পেশাল-৩ রুটে মনতলা-সিলেট-মনতলা রুটের ১৫০ কিলোমিটার দূরত্বে ১০টি কোচ সম্বলিত এক জোড়া ট্রেন চলাচল করবে। এই রুটে সুলভ (২য় শ্রেণি) ৮৫ টাকা, শোভন ১৪০ টাকা, শোভন চেয়ার ১৬৫ টাকা এবং প্রথম শ্রেণিতে (১৫% ভ্যাটসহ) ২৫৩ টাকা জনপ্রতি ভাড়া ধরা হয়েছে। পার্সেলপ্রতি কেজি ভাড়া ধরা হয়েছে ১ টাকা ৫৫ পয়সা। প্রতি ট্রিপে (আপ ও ডাউন) রেকপ্রতি ভাড়া ৬৪ হাজার ৯০৬ টাকা ও ১০% নন স্টপ চার্জ ৪ হাজার ৮৩৪ টাকা ধরে দুই ট্রিপে ট্রেনের মোট ভাড়া ধরা হয়েছে ১ লাখ ৩৯ হাজার ৪৮০ টাকা।

 

অপরদিকে সিলেট-বরমচাল-কুলাউড়া-সিলেট রুটের স্পেশাল-৪ ট্রেনটি ২৯ কিলোমিটার দূরত্বের পথে যাত্রী পরিবহন করবে। ১০টি কোচ সম্বলিত এক জোড়া ট্রেনের সুলভ (২য় শ্রেণির) ভাড়া ধরা হয়েছে জনপ্রতি ৩৫ টাকা এবং পার্সেল কেজি প্রতি ৯০ পয়সা। উভয় পথে (আপ ও ডাউন) স্পেশাল-৪ ট্রেনের মোট ভাড়া ধরা হয়েছে ৪১ হাজার ১৬০ টাকা। সব মিলিয়ে সিলেটে প্রধানমন্ত্রী জনসভাকে কেন্দ্র করে রেলের পরিচালিত ৪ জোড়া ট্রেনে ভাড়া আদায় হবে ৪ লাখ ৪ হাজার ১৩৪ টাকা।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট রেলস্টেশনের ম্যানেজার মো. নূরুল ইসলাম জানান, যাত্রী চাহিদা বিবেচনায় রেলওয়ে সক্ষমতা অনুযায়ী বিশেষ ট্রেন সার্ভিস পরিচালনা করে। যে কেউ চাইলে ভ্রমণের জন্য (বাণিজ্যিক কার্যক্রম ব্যতীত) আবেদন করলে বিশেষ ট্রেন সার্ভিস দেওয়া হয়। সিলেটে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা উপলক্ষ্যে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের আবেদনের প্রেক্ষিতে সিলেটে বিশেষ ৪ জোড়া ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Back to top button